ব্রেকিং নিউজঃ
 
Thu, 18 Jan, 2018

 

 

 

 

     
 

“তারা কি দেখেনি যে, আমি হস্তিবাহিনী (আবরাহার) কি অবস্থা করেছি

বাংলাদেশ বার্তা ২৪.কম/ ধর্ম/ ১১ আগস্ট/ ৯৮ভাগ মুসলমান রাষ্ট্রদ্বীন ইসলাম উনার দেশের সরকারি কর্মকর্তারা কীভাবেমহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র ঘর মসজিদ ভেঙ্গে ফেলমতো দুঃসাহস দেখাতেপারে! পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ বিরোধী কোনো আইন পাস হবে না’- এ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ সরকারি কর্মকর্তারা

কি-যালিম আবরাহার ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে চায়? অর্থাৎ আবরাহা ও তার সৈন্যবাহিনীর মতো ধ্বংস হতে চায়? যদি না চায়, তাহলে তাদেরকে অবলিম্বে অবশ্য অবশ্যই পবিত্র মসজিদ ভাঙ্গার সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নিতে হবে।পবিত্রমসজিদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে যারা সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে চায় তাদেরকেএবং যারা এদেশে ভারতীয় এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে চায় তাদেরকে চিহ্নিত করেউপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।নচেৎ খোদায়ী গযবে, জনরোষে ও ষড়যন্ত্রকারীদের ষড়যন্ত্রে সবারই নিশ্চিহ্ন ও ধ্বংস হয়ে যাওয়া ছাড়া কোনো পথ থাকবে না।  পবিত্রমসজিদ হলো মহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র ঘর। আর এই ঘর ভাঙতে গেলে তার কিপরিণতি হয় এ প্রসঙ্গে যালিম শাসক আবরাহার পরিণতির কথা স্মরণ করতে হবে। সেসৈন্য-সামন্ত, হাতি-ঘোড়া নিয়ে এসেছিল মহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র ঘর কাবাশরীফ ধ্বংস করতে। কিন্তু মহান আল্লাহ পাক তিনি তা বরদাশত করলেন না, বরংতাকেসহ তার বাহিনীর উপর গযব নাযিল করে ধ্বংস করে দিলেন। পবিত্র কুরআন শরীফউনার মধ্যে এ প্রসঙ্গে পবিত্র সূরা ফীলশরীফ অবতীর্ণ হয়েছে। সুতরাংঈমানের সাথে টিকে থাকতে হলে এবং ঈমানের সাথে ইন্তেকাল করতে হলে অনতিবিলম্বেতওবা করে এ জঘন্য সিদ্ধান্ত থেকে ফিরে আসতে হবে।

সংবাদ শিরোনাম