ব্রেকিং নিউজঃ
 
Sun, 21 Jan, 2018

 

 

 

 

     
 

বাগেরহাটে সন্ত্রাসী হামলায় আ.লীগের কর্মী নিহত

বাংলাদেশ বার্তা ২৪.কম/ বাগেরহাট/ ২৭ এপ্রিল/ বাগেরহাটে মোজাফফর রহমান ওরফে রাজা শেখ (৩৬) নামের আওয়ামী লীগের এককর্মীকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছেসন্ত্রাসীরা। সোমবার বিকেলে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজা শেখের মৃত্যু হয়। তিনি কৃষ্ণনগর গ্রামের ইসমাঈল শেখের ছেলে।

এদিকে, হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার সন্দেহে শেখ শহীদুল ইসলাম (৪০) নামের একব্যক্তিকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। তিনি কৃষ্ণনগর গ্রামের আব্দুল হামিদ শেখেরছেলে। এর আগে সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বাগেরহাট সদর উপজেলার কাড়াপাড়াইউনিয়নের কৃষ্ণনগর গ্রামে রাজা শেখের ওপর সন্ত্রাসীরা ধারালো অস্ত্র ওলোহার রড নিয়ে হামলা চালায়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজনরাজাকে উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতিহলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করাহয়। নিহতের ভাগ্নে মো. রাব্বি শেখ বলেন, ‘আমার মামা রাজা বাড়ি থেকে বের হয়েবড় খোকার দোকানের সামনে আসলে আগে থেকে ওত পেতে থাকা পূর্ব পরিচিত স্থানীয়শহীদুল, আল আমিন ও মিজান নামের তিন ব্যক্তি রাম দা ও লোহার রড দিয়েএলোপাথাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে ফেলে রেখে চলে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন ওপরিবারের সদস্যরা রক্তাক্ত অবস্থায় মামাকে উদ্ধার করে বাগেরহাট সদরহাসপাতালে ভর্তি করে। উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেভর্তি করা হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মামার মৃত্যু হয়। আমার মামাআওয়ামী লীগের সক্রিয় কর্মী ছিলেন।তবে কী কারণে রাজার ওপর হামলা হয়েছে তাতিনি বলতে পারেননি। বাগেরহাট মডেল থানার ওসি মো. তোজাম্মেল হক বলেন, ‘সোমবার বেলা সাড়ে১১টার দিকে ৪-৫ জনের একটি সন্ত্রাসী দল লোহার রড ও ধারালো অস্ত্র নিয়েরাজার ওপর হামলা চালায়। এতে রাজা গুরুতর আহত হন। স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমেখবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রাজাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে এবংরাজার ওপর হামলার ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে শহীদুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তিকেগ্রেপ্তার করে। কী কারণে রাজাকে হত্যা করা হয়েছে, তা জানতে পুলিশের হাতেআটক শহীদুলকে থানায় রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।