ব্রেকিং নিউজঃ
 
Sat, 23 Sep, 2017

 

 

 

 

     
 

বোনের প্রেমিকের ছুরিকাঘাতে শিশু নিহত

বাংলাদেশ বার্তা ২৪.কম/ খুলনা/ ২৯ আগস্ট/ খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার উলা গ্রামে বোনের প্রেমিকের ধারালো ছুরিকাঘাতে ফয়সাল মল্লিক (১১) নামে এক শিশু নিহত হয়েছে। এ সময়ে আহত হয়েছেন শিশুটির বাবা আব্দুর রশিদ মল্লিকসহ তিনজন। হত্যাকারী প্রেমিককে এলাকাবাসী আটক করে পুলিশে দিয়েছেন। রাত সাড়ে ১২টার দিকে

এই ঘটনা ঘটে।পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার গজেন্দ্রপুর গ্রামের মো: সামাদ শেখের ছেলে মিজানুর রহমান (২৫) রাত ১২টার দিকে উলা গ্রামের আব্দুর রশিদ মল্লিকের বাড়ি প্রবেশ করে। সে রশিদ মল্লিকের বাড়ির একটি কক্ষে ঢুকে যে ঘরে তার মেয়ে সোমা আক্তার ( তালাকপ্রাপ্তা) এবং স্কুলে পড়া শিশু ফয়সাল ঘুমায়। এ সময়ে ফয়সাল মিজানুরের উপস্থিতি টের পেয়ে চিৎকার করলে তাকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে মিজানুর রহমান। এক পর্যায়ে ফয়সালের বাবাসহ অন্যরা এগিয়ে আসলে মিজানুর তাদেরকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। পরে এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশে দেয়। এদিকে ছুরিকাঘাতে আহত শিশু ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আহত আব্দুর রশিদ মল্লিক, মোস্তফা সরদার ও মোফা সরদারকে ওই রাতেই খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।তবে এক সূত্র জানিয়েছে, সোমা বেশ কয়েকবছর আগে স্বামীর সাথে ছাড়াছাড়ি হয়ে যাওয়ার পর বাবার বাড়ি বসবাস করে। তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ রয়েছে। তার একাধিক ছেলে বন্ধু রয়েছে যারা তাদের বাড়িতে যাতায়াত করে থাকে। এ নিয়ে প্রতিবেশীদের সাথে বিভিন্ন সময়ে ঝগড়া বিবাদ হত।পূর্ব সম্পর্কের জের ধরে মিজানুর তাদেও বাড়িতে রাতের বেলায় প্রবেশ করে। তাকে বোনের ঘরে দেখতে পেয়ে ফয়সাল চিৎকার দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মিজানুর রহমান ফয়সালকে ধারাল ছুরি দিয়ে আঘাত করে হত্যা করে। এ সময়ে আহত হয় আরও তিনজন। এই ঘটনার পর সোমা খাতুন ওই রাতে আত্মগোপন করে। পরে পার্শ্ববর্তী একটি বাড়ি থেকে সোমাকে উদ্ধার করা হয়।এ বিষযে ডুমুলিযা থানার সেকেন্ড অফিসার উপ-পরিদর্শক মো: মহাসীন জানান, ফয়সাল ঊলা- মইখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্র। তারা চার ভাইবোন। ফয়সাল সকলের ছোট। সোমার আগে বিয়ে হয়েছিল।কিন' তার সংসার টেকেনি। মিজানুরের মা ও বাবা ভারতে থাকে এবং মিজানুর সাজিয়াড়া গ্রামে তার নানা বাড়িতে থাকে। এ বিষয়ে ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এম মশিউর রহমান জানান, মিজানুরের সাথে রশিদ মল্লিকের মেয়ের প্রেমজ সম্পর্ক রয়েছে। সেই সূত্র ধরে সে তাদের বাড়িতে এসে রশিদের ঘরে প্রবেশ করলে ফয়সাল টের পেয়ে চিৎকার দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ফয়সালকে এলোপাতাড়ি আঘাত করলে শিশুটি মারা যায়। লাশ ময়না তদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি।

সংবাদ শিরোনাম