ব্রেকিং নিউজঃ
 
Sun, 21 Jan, 2018

 

 

 

 

     
 

কুমিল্লার চান্দিনায় যৌতুকের বলি নববধূ আয়েশা

বাংলাদেশ বার্তা ২৪.কম/ কুমিল্লা/ ৮ জুলাই/ কুমিল্লারচান্দিনায় বিয়ের তিন মাস অতিবাহিত হওয়ার আগেই যৌতুকের বলি হলো নববধূ আয়েশাআক্তার (২০)। যৌতুকের দাবিতে স্বামীর অমানসিক নির্যাতনে অবশেষে মৃত্যু হয়এই গৃহবধূর। তবে তার মৃত্যুর বিষয়টি হত্যা না আত্মহত্যা এ নিয়ে ধুম্রজালসৃষ্টি হয়েছে। বুধবার

সকালে উপজেলার শুহিলপুুর ইউনিয়নের শালিখা গ্রামেওই হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটে। নিহত আয়েশা আক্তার ওই গ্রামের আব্দুল কাইয়ূম এরস্ত্রী ও চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার অতিশ্বর গ্রামের মৃত আবু তাহের এরমেয়ে। সে নারায়ণগঞ্জের তুলারাম সরকারি কলেজ অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্রী। নিহতেরভাই জামাল হোসেন জানান, চলতি বছরের এপ্রিল মাসে বোন আয়েশা আক্তারকে শালিখাগ্রামের আব্দুল মান্নান ভূইয়ার ছেলে সঙ্গে বিয়ে দেয়। বিয়ের পর থেকেইবিভিন্ন অজুহাতে যৌতুক দাবি করে আসছিল স্বামী কাইয়ূম। আসন্ন ঈদ উপলক্ষ্যেস্বামী কাইয়ূম আবারো যৌতুক দাবি করায় আয়েশার পরিবার স্বামীকে ঈদ উপলক্ষ্যেনতুন পোশাক উপহার দিলে এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে স্বামী কাইয়ূম। ওই ঘটনাকেকেন্দ্র করে বুধবার সকালে স্বামী কাইয়ূম আয়েশাকে মারধর করে হত্যা করে গলায়ওড়না পেঁচিয়ে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টাকরে।নিহতের বোন ফাতেমা আক্তার জানান, ২ ভাই ও ৪ বোনের মধ্যে আয়েশাসবার ছোট। মঙ্গলবার রাতেও স্বামী কাইয়ূম তাকে মারধর করার পর আয়েশা মোবাইলফোনে আমাকে জানায়, ‘বোন আমাকে বাঁচান, আমাকে তারা বাঁচতে দিবে না, আমিবাঁচতে চাই। রাত প্রায় ১টায় সময় ওই কথাই ছিল তার সঙ্গে শেষ কথা। তারপরথেকে আর তাকে ফোনে না পেয়ে সকালে আমরা শালিখা গ্রামে তার বাড়িতে এসে দেখিবাড়িতে কেউ নেই। আমার বোনকে হত্যা করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করেতারা সকলেই পালিয়েছে।চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ রসুল আহমেদনিজামী জানান, প্রাথমিক তদন্তে আত্মহত্যা বলে ধারণা করা হছে। বুধবার বিকেলেনিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট এবং নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থাগ্রহণ করব।