ব্রেকিং নিউজঃ
 
Tue, 21 Nov, 2017

 

 

 

 

     
 

গাছ কাটার উৎসব

বাংলাদেশ বার্তা ২৪.কম/ কিশোরগঞ্জ/ ২৫ অক্টোবর/ ভৈরব-কিশোরগঞ্জমহাসড়কের বিভিন্ন অংশে রাস্তার দুই পাশ থেকে বৃক্ষ নিধনের মহোৎসব শুরুহয়েছে। একটি সংঘবদ্ধ চক্র দীর্ঘদিন ধরে মহাসড়কের দুই পাশের মূল্যবান গাছকেটে নিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, এই বৃক্ষ নিধন অভিযানেযোগ দিয়েছে সড়ক

ও জনপথ (সওজ) বিভাগের একশ্রেণীর দুর্নীতিপরায়ণকর্মকর্তা-কর্মচারী। বৃক্ষ নিধন প্রতিরোধের ব্যাপারে কারও কোনো মাথাব্যথানেই। এক শ্রেণীর গাছ চোর চক্র এসব গাছ কেটে মহাসড়কে গাছশূন্যতার সৃষ্টিকরছে। ভৈরব-কিশোরগঞ্জের ৫৫ কিলোমিটার মহাসড়কের দুই পাশের গাছের সংখ্যা ছিলকয়েক হাজার। ভৈরব, কুলিয়ারচর, কটিয়াদী মহাসড়কের বিভিন্ন অংশের অধিকাংশ গাছচুরি হয়ে গেছে। এসব গাছের মালিকানা সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের। গাছ কাটারসময় কেউ জিজ্ঞাসা করলে সড়ক ও জনপথ বিভাগে লোকজনকে দেখিয়ে বলে সড়ক ও জনপথ (সওজ) ভৈরব অফিসের নির্দেশে এসব গাছ কাটা হচ্ছে। ফলে কেউ প্রতিবাদ না করায়প্রকাশ্যেই চক্রটি এই সড়কের গাছ কেটে সাবাড় করছে। সম্প্রতি সরেজমিনভৈরব-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের মনোহরপুর গুচ্ছগ্রামসংলগ্ন এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, পাঁচ থেকে ছয়জন করাত দিয়ে গাছ কাটছে। এ সময় তাদের কাছে গাছ কাটার কারণজানতে চাইলে আবুল হোসেন, শফিক, রহমত উল্লাহ, সামসু মিয়া ও রইছ উদ্দিন দাবিকরেন, আমরা সড়ক ও জনপথ বিভাগের ভৈরব অফিসের কর্মচারী। সড়ক ও জনপথ বিভাগেরভৈরব অফিসের কর্মকর্তাদের নির্দেশে গাছ কাটছি। এ সময় ছবি তোলার সময় করাতগাছে রেখেই তারা দৌড়ে পালিয়ে যায়। জানা যায়, সংঘবদ্ধ চক্রটির সঙ্গেস্থানীয় করাত কল মালিক ও প্রভাবশালী মহল জড়িত থাকায় কেউ প্রতিবাদ করতে সাহসপায় না। এ ব্যাপারে কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নূরুল মিল্লাতবলেন, ভৈরব-কিশোরগঞ্জ মহাসড়ক থেকে যেভাবে বৃক্ষ নিধন হচ্ছে এতে সরকারেরঅর্থনৈতিক ক্ষতির পাশাপাশি পরিবেশের ভারসাম্যও হারিয়ে যাবে।

সংবাদ শিরোনাম