ব্রেকিং নিউজঃ
 
Thu, 18 Jan, 2018

 

 

 

 

     
 

গ্রেফতারকৃত র‌্যাবের ৩ সদস্য ৭ দিনের রিমান্ডে

বাংলাদেশ বার্তা ২৪.কম/ নারায়ণগঞ্জ/ ২ ডিসেম্বর/ নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনেরকাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম এবং আইনজীবী চন্দন সরকারসহ ৭ জনকেঅপহরণ ও হত্যার ঘটনায় গ্রেফতারকৃত র‌্যাবের ৩ সদস্যের ৭ দিনের রিমান্ডমঞ্জুর করেছেন আদালত। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- র‌্যাব সদস্য হাবিলদার

আবুলকালাম আজাদ, নাসিরউদ্দিন এবং এএসআই বজলুর রহমান।মঙ্গলবার সকাল১০টার দিকে গোয়েন্দা পুলিশ তাদের আদালতে হাজির করে ১০ দিন করে রিমান্ডআবেদন জানালে আদালত তাদের ৭দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।এর আগেসোমবার রাতে নারায়ণগঞ্জের সিদ্দিরগঞ্জ উপজেলার আদমজী এলাকার র‌্যাব-১১ এরহেডকোয়ার্টার থেকে তাদের গ্রেফতার করে ৭ খুন মামলার তদন্তকারী কর্তৃপক্ষজেলা গোয়েন্দা পুলিশ।পরে মঙ্গলবার ভোরে তাদেরকে নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।প্রসঙ্গত, ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ থেকে একসঙ্গে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৩ নম্বরওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-২ নজরুল ইসলাম, তার বন্ধু মনিরুজ্জামানস্বপন, তাজুল ইসলাম, লিটন, নজরুলের গাড়িচালক জাহাঙ্গীর আলম, আইনজীবী চন্দনকুমার সরকার এবং তার ব্যক্তিগত গাড়িচালক ইব্রাহিম অপহৃত হন।৩০এপ্রিল বিকালে নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদী থেকে ৬ জনের এবং ১ মে সকালেএকজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত সবারই হাত-পা বাঁধা ছিল। পেটে ছিল আঘাতেরচিহ্ন। প্রতিটি লাশ ইটভর্তি দুটি করে বস্তা বেঁধে ডুবিয়ে দেয়া হয়েছিল।ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় নিহত প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনাইসলাম বিউটি ও নিহত আইনজীবী চন্দন সরকারের মেয়ে জামাতা ডা. বিজয় কুমার পালবাদী হয়ে পৃথক দুটি মামলা করেন।এ ঘটনায় র‌্যাব-১১ এর সম্পৃক্ততারঅভিযোগ ওঠে। পরে ৫ মে হাইকোর্টের বিচারপতি রেজাউল হক ও বিচারপতি গোবিন্দচন্দ্র দাসের বেঞ্চ স্বপ্রণোদিত হয়ে র‌্যাব-১১ এর ৩ কর্মকর্তাকে গ্রেফতারেরনির্দেশ দেন। একই সঙ্গে র‌্যাব সদর দফতরকে এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদনজমা দিতে বলেন।পরে র‌্যাব কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কর্নেল তারেকসাঈদ মোহাম্মদ, মেজর আরিফ হোসেন ও লেফটেন্যান্ট কমান্ডার এম এম রানাসহ ২৭জনকে গ্রেফতার করা হয়।

সংবাদ শিরোনাম