ব্রেকিং নিউজঃ
 
Sun, 23 Jul, 2017

 

 

 

 

     
 

শ্রীবরদীতে ভিজিএফের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ

বাংলাদেশ বার্তা ২৪.কম/ শাকিল মুরাদ/শেরপুর/ অক্টোবর/ ঈদ পূজা উপলক্ষে সবাই যখন ব্যস্ত ঠিক এসময় বিতরণ করা হলো শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার রাণীশিমুল ইউনিয়ন পরিষদের ভিজিএফের চাল। সরকারি বিধি মোতাবেক প্রত্যেক দুঃস্থ অস্বচ্ছলদের মাঝে ১০কেজি করে ভিজিএফের চাল বিতরণের কথা। অথচ ৭/৮কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়।

এমনকি চাল বিতরণের স্লিপ বিক্রি হয় আগেরদিন রাতে। এসব স্লিপ ক্রেতারা হলো স্থানীয় ক্ষুদ্র চাল ব্যবসায়ীরা। ফলে ভিজিএফের চাল থেকে বঞ্চিত হলো দুঃস্থ অস্বচ্ছল ব্যক্তিরা। অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয় ভুক্তভোগিরা। অক্টোবর। রোজ শনিবার। সময় বেলা সাড়ে বারোটা। সরেজমিনে রাণীশিমুল ইউনিয়ন পরিষদে ভিজিএফের চাল বিতরণের দৃশ্যপটই আলাদা। সেখানে কয়েকজন ক্ষুদ্র চাল ব্যবসায়ী ব্যতিত ভিজিএফের চাল বিতরণে দুঃস্থ অসহায়দের দেখা যায়নি। এসময় ইউপি চেয়ারম্যান আবু সামা, সচিব দুই তিনজন ইউপি সদস্য/সদস্যা চাল বিক্রি করছে বলে পাইকাররা জানান। ইউপি চেয়ারম্যান আবু সামা জানান, এখানে ১৬শ ৯৭টি স্লিপের বিপরীতে ১০কেজি করে চাল বিতরণ করা হচ্ছে। এর মধ্যে ৪শ ৩৮টি স্লিপ বিতরণ করেছে সরকার দলীয় নেতাকর্মীরা। সরাসরি চাল বিক্রির কথা অস্বীকার করে তিনি বলেন, নেতাকর্মীরাই এসব স্লিপ বিক্রি করে দিয়েছে। তবে বেশিরভাগ ইউপি সদস্য/সদস্যার অভিযোগ চেয়ারম্যান আবু সামা বিতরণকৃত বেশিরভাগ স্লিপই বিক্রি করেছে পাইকারদের কাছে। যার ফলে অত্র ইউনিয়নের ভিজিএফের সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে দুঃস্থ্ অসহায়রা। এসময়নির্ধারিত পরিদর্শক উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী কর্মকর্তা আব্দুল মোতালেব ছিলেন অনুপস্থিত। ভিজিএফের চাল বিতরণে অনিয়ম দূর্নীতির ব্যাপারে ওই কর্মকর্তা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে মোবাইল ফোনে পাওয়া যায়নি। তবে ভিজিএফের চাল বিতরণে অনিয়ম দূর্নীতি তদন্তের দাবী করেছেন এলাকার ভুক্তভোগি সচেতন মানুষরা।

সংবাদ শিরোনাম